পশ্চিমবঙ্গ

বর্ধমানে ব্যাগের দোকানে হানা দুর্নীতি দমন শাখার, বাজেয়াপ্ত নামী কোম্পানির নকল ৩১৬টি পিঠ ব্যাগ

FOCUS BENGAL

FOCUS BENGAL

ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমান: নামকরা প্রস্তুতকারী সংস্থার ব্র্যান্ড নকল করে বাজারে বিক্রি হচ্ছে পিঠ ব্যাগ। সোমবার বর্ধমানের দত্ত সেন্টার মার্কেটে এমনই নকল ব্যাগ বিক্রয়কারী একাধিক দোকানে অভিযান চালালো জেলা পুলিশের দুর্নীতি দমন শাখা। বাজেয়াপ্ত করা হল ব্যাগ কোম্পানির নাম ছাপা এবং একই উচ্চারণের অন্য বানান ব্যবহার করা প্রায় ৩১৬ টি পিঠব্যাগ।

বিজ্ঞাপন

দত্ত সেন্টারের একটি ব্যাগ বিক্রয়কারী দোকানের কর্ণধার অমল দেবনাথ বলেন, ‘ আমি সারাবছর বিভিন্ন কোম্পানির নাম লেখা ব্যাগ কিনে এনে বিক্রি করি। কোনদিন নকল ব্যাগ বিক্রির অভিযোগ ওঠেনি। গত সপ্তাহের বৃহস্পতিবার এক ব্যক্তি আমার দোকানে এসে সাড়ে তিনশো পিস ‘সাফারি’ নাম লেখা ব্যাগের অর্ডার দিয়ে যান। সেইমত আমরা যেখান থেকে মাল কিনি সেই কোম্পানিকে অর্ডার পাঠিয়ে ব্যাগ মজুদ করেছিলাম। সেই ব্যাগগুলোর ওপরে কোনোটাতে ইংরেজি তে ছাপা লেখা ছিল Safari, আবার কোনো ব্যাগের ওপর বানান লেখা ছিল Saffari, তো কোনটার ওপর Safarri।

সোমবার পুলিশ এসে আমাকে জানায়, আমি নাকি সাফারি কোম্পানির নাম নকল করে  ব্যাগ বিক্রি করছি। এতে আমার কি দোষ আছে! এই রকম বহু নামী কোম্পানির নাম লেখা বিভিন্ন প্রোডাক্ট বাজারে বিক্রি হচ্ছে। কোম্পানি তৈরি করে দিচ্ছে বলেই তো আমাদের কাছে আসছে। এখন এই বাজারের অবস্থা, তার মধ্যে ৭০/৮০হাজার টাকা ফাঁসিয়ে যদি কোর্ট কাছারি করতে হয়, এর থেকে বিষ খাওয়া ভাল। এখন মাল ফেরত পেতে আদালতে যেতে হবে।’

আই পি এনফোর্সমেন্ট ব্র্যান্ড প্রটেকশন ও রিস্ক ম্যানেজমেন্ট এর তদন্তকারী অফিসার সৈয়দ মঈনুদ্দিন বলেন,’ সাফারি কোম্পানির পক্ষ থেকে আমাদের কাছে একটা অভিযোগ জমা পড়েছিল যে বাজারে সেই কোম্পানির নাম ও লোগো ব্যবহার করে নকল ব্যাগ বিক্রি হচ্ছে। সেই অভিযোগের তদন্তে নেমে বর্ধমানের দত্ত সেন্টার মার্কেটে বেশ কয়েকটি দোকানে পর্যবেক্ষণ করা হয়েছিল। সোমবার পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশের দুর্নীতি দমন শাখার সহযোগিতায় সেই সমস্ত দোকানে অভিযান চালানো হয়। একটি দোকানের গোডাউনেও রেইড করা হয়েছে। দুটি দোকান ও একটি গোডাউন মিলিয়ে মোট ৩১৬টি সাফারি কোম্পানির নাম নকল করা ব্যাগ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। পরবর্তীতে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।’

পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে, অভিযান চলাকালীন দোকানদার কোম্পানির নাম লেখা ব্যাগ ক্রয়ের বৈধ কোন রশিদ বা কাগজ পেশ করতে পারেনি। অভিযুক্তদের আইনি নোটিশ পাঠানো হবে। নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে বাজেয়াপ্ত সামগ্রী আদালতে পেশ করা হবে। আদালতের পরবর্তী নির্দেশ মোতাবেক পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এদিকে সোমবার শহরের ব্যস্ততম মার্কেটে নকল সামগ্রী বিক্রির বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযান ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে শহরে।

বিজ্ঞাপন

Advertisement